গোড়ায় গলদ! শিশুর এই খাদ্যাভ্যাসের ফল হতে পারে ভয়ানক

এখনই শেয়ার করুন

বিবিধ ডট ইন: একুশ শতকে এসে মানব জীবনের চিন্তাধারা যেমন বদলেছে, সেইরকমই লাইফস্টাইলেরও পরিবর্তন এসেছে। এখন চারিদিকে শুধু প্রতিযোগিতার দৌড় দেখা যায়। আর এই অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের কারণে আজকের যুগের মানুষের খাদ্যতালিকাও ফাস্টফুডে ভরে উঠেছে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাই এখন কর্মরত। ফলে খাদ্য তালিকা থেকে ভিটামিন এবং নিউট্রিশন যুক্ত খাবারের ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। সবাই আমরা মুখরোচক খাবারের দিকে ঝুঁকছি। এর ফলে আট থেকে আশি, সব বয়সিদের মধ্যে পুষ্টিযুক্ত খাবারের চাহিদা থেকেই যাচ্ছে। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় জানা গেছে, ছোটবেলা থেকে ঠিকমতো পুষ্টিযুক্ত খাবার না খেলে বড় বয়সে এর প্রভাব অপ্রীতিকর হতে পারে।

আপনি কি প্রসেসড ফুড বা ফাস্টফুডে সীমাবদ্ধ? কিংবা আপনি চা এবং কফি চিনি সহযোগে পান করেন? উত্তর যদি ‘হ্যাঁ’ হয় তাহলে আপনার জন্য কিছু সতর্কবাণী আছে। সম্প্রতি একটি নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে, যদি আপনার শৈশবে অত্যাধিক চর্বিজাতীয় বা শর্করাজাতীয় খাবার খাদ্যতালিকার অঙ্গ হয়, তবে ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস বা এখনকার প্রচলিত ভাষায় ‘ডায়েট’ কম কার্যকরী হবে। এর একমাত্র কারণ হিসাবে শৈশবকালের সেই সমস্ত অস্বাস্থ্যকর খাবার আপনার মাইক্রোবায়োমে অপ্রীতিকর পরিবর্তন আনতে পারে!

 

কী বলা হয়েছে সমীক্ষায়:

ইউসি রিভারসাইড গবেষকদের পরীক্ষিত এক নতুন সমীক্ষায় ধরা পড়েছে কিছু বিস্ময়কর তথ্য, যা পড়লে আপনি শিউরে উঠতে বাধ্য হবেন। সেই সমীক্ষাটি করা হয়েছিল কিছু প্রাপ্তবয়স্ক ইঁদুরের ওপর। সেখানে পরিলক্ষিত হয়েছে কিছু শারীরিক সমস্যা। যেমন অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার মোট সংখ্যার সাথে তার বৈচিত্র্যের পরিমাণের হঠাৎই হ্রাস পাওয়া। পরে দেখা যায় যেসব ইঁদুরগুলিকে অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ানো হয়েছিল তাদেরই এই অবস্থা। এহেন অবস্থায় গবেষকরা বলছেন উপরিউক্ত ফলাফলগুলি পাশ্চাত্য দেশের মানব শিশুর খাদ্যাভ্যাসের সঙ্গে সমতুল্য ছিল। যেগুলি প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট যুক্ত এবং শর্করাযুক্ত খাদ্য দ্বারা নির্মিত। ফলস্বরূপ তাদের অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমে ছ’বছর পরে তা ধরা পড়ে।

অন্ত্রের মাইক্রোবায়োম আসলে কী?

মাইক্রোবায়োম বলতে মানবশরীরে বা প্রাণীদেহে বসবাসকারী ছত্রাক পরজীবী আর ভাইরাসসহ সমস্ত ব্যাকটেরিয়াকে বোঝায়। এর মধ্যে বেশির ভাগ অনুজীবগুলি অন্ত্রে পাওয়া যায়, যা বেশিরভাগই অনাক্রমতা পদ্ধতিকে উদ্দীপিত করে। অর্থাৎ খাবারের কনাগুলিকে বাড়িয়ে দেয় এবং মূল ভিটামিনগুলির সংশ্লেষণে সহায়তা করে। একজন স্বাস্থ্যকর মানবদেহে রোগ জীবাণু এবং উপকারী জীবের ভারসাম্য বজায় থাকে।

অ্যান্টিবায়োটিক বা অসুস্থতা বা অস্বাস্থ্যকর ডায়েটের কারণে যখন এই ভারসাম্যের বিঘ্ন ঘটে, তখনই শরীর অসুস্থ হওয়ার দরুন সংবেদনশীল হয়ে পরে।

গবেষণার দ্বারা মাইক্রোবায়োমের প্রভাব বিশ্লেষণ করার জন্য ইঁদুরগুলোকে চারটি ভাগে বিভক্ত করা হয়েছিল। যার অর্ধেককে স্বাস্থ্যকর খাবারের সাথেসাথে অনুশীলনের জন্য রানিং-হুইল বা চলমান চক্রের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছিল। অপরদিকে বাকি অর্ধেক বিভাগকে অনুশীলন ছাড়াই কম স্বাস্থ্যকর পাশ্চাত্য ডায়েট খাওয়ানো হয়েছিল।

তিন সপ্তাহ পরে সমস্ত ইঁদুরগুলিকে পুনরায় বিনা অনুশীলন এবং স্ট্যান্ডার্ড ডায়েটে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়। যেমনটা পরীক্ষাগারে ইঁদুরদের রাখা হয়ে থাকে। পরবর্তী ১৪সপ্তাহ প্রাণীদেহে ব্যাকটেরিয়ার প্রাচুর্য এবং বৈচিত্র্য দেখার জন্য পরীক্ষা করা হয়।

 

ফলাফল

পরীক্ষা দ্বারা দেখা যায় যে ‘মুরিব্যাকুলামের’ মত ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা পাশ্চাত্য ডায়েট বিভাগে উল্লেখযোগ্যভাবে কম দেখা যায়। মূলত ব্যাকটেরিয়াগুলি কার্বোহাইড্রেট বিপাকের জন্য ব্যবহৃত হয়।

 

অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া অনুশীলনের দ্বারা কিভাবে সাড়া দেয়?

পরিলক্ষিত হয়েছে, যে সমস্ত ইঁদুরগুলি অনুশীলনের মধ্যে ছিল, তাদের অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ সংবেদনশীলই ছিল। একইসাথে যে সমস্ত ইঁদুরগুলিকে স্বাস্থ্যকর খাবার ও শরীরচর্চায় সামিল ছিল, তাদের দেহে ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি পেয়েছে। অপরদিকে অনুশীলনবিহীন উচ্চ-ফ্যাটযুক্ত ডায়েটে থাকা ইঁদুরগুলোর ভেতর এই ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ হ্রাস পেয়েছে। এই প্রজাতির ব্যাকটেরিয়াগুলির পরিমাণ দেহের শক্তিকে অনেকাংশে প্রভাবিত করতে পারে।

অন্যান্য গবেষকরাও এই গবেষণায় পাঁচ সপ্তাহ ট্রেডমিল প্রশিক্ষণের পরে একই রকমের ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি দেখেছিল। যাতে অনুশীলনের দ্বারা এই ব্যাকটেরিয়াগুলির উপস্থিতির বৃদ্ধি লক্ষ্য করা যায়।

 

সিদ্ধান্ত

সামগ্রিকভাবে বিভিন্ন সমীক্ষায় দেখা গেছে যে প্রাথমিক জীবনে শরীরচর্চার চেয়ে পাশ্চাত্য ডায়েট অনুসরণ করলে মাইক্রোবায়োমের ওপর তার প্রভাব দীর্ঘমেয়াদি ফলপ্রসূ।

তাই সর্বশেষে বলা যায়, দু’মুঠো খাবারের জন্যই মানুষ এত দৌড়াদৌড়ি করছে। আর দৌড়াদৌড়ি করার জন্য স্বাস্থ্য নামক সম্পদকে ভাল রাখতে হবে। তাই সুস্থ-সবলভাবে বাঁচতে গেলে শৈশব থেকেই পুষ্টিগুণসম্পন্ন খাদ্যতালিকায় হাতেখড়ি প্রয়োজন।

 

গোড়ায় গলদ! শিশুর এই খাদ্যাভ্যাসের ফল হতে পারে ভয়ানক লিখলেন অনিন্দিতা সুর।


এখনই শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।