সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার নামে বৃদ্ধার জমি আত্মসাৎ করলেন তৃণমূল উপপ্রধান

 

বিবিধ ডট ইন: এ যেন সর্ষের মধ্যে ভূত। ভাতা পাইয়ে দেওয়ার নামে জমি লিখিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূল উপপ্রধানের বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগণার ভাঙড়ের। রাজ্য সরকার থেকে একাধিক প্রকল্পের সূচনা করেছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই সব প্রকল্পের সুবিধা আমজনতাদের পাইয়ে দেওয়ার দায়িত্ব তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের৷ বয়স্কদের জন্য রয়েছে বৃদ্ধ ভাতা৷

অভিযোগ বৃদ্ধা উর্মিলা নস্করকে বৃদ্ধ ভাতা দেওয়ার নাম করে জমি রেজিস্ট্রি অফিসে নিয়ে যান স্থানীয় তৃণমূল উপপ্রধান নিত্য গোপাল মন্ডল৷ সেখানে গিয়ে উর্মিলা দেবীর সম্পত্তি নিজের নামে জোরপূর্বক লিখিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে৷

ঘটনায় উপপ্রধানের বিরুদ্ধে থানায় দ্বারস্থ হন ওই বৃদ্ধা৷ তাঁর বিরুদ্ধে জমি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ জানান উর্মিলা দেবী৷ অন্যদিকে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের উপপ্রধান নিত্য গোপাল মন্ডল৷ তিনিও বৃদ্ধা ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন৷

যদিওবনিত্য গোপাল বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যে৷ কারণ ওনার সঙ্গে আমার ২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে তাঁর জমি কিনে নেওয়ার কথা হয়েছিল৷ এখন উনি বলছেন বৃদ্ধ ভাতা দেওয়ার নাম করে জমি লিখে নেওয়া হচ্ছিল৷ কিন্তু এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন৷’

বৃদ্ধা উর্মিলা দেবীর দাবি, তাঁকে রেজিস্ট্রি অফিসে নিয়ে গিয়ে হাতের ১০ টা আঙুলে কালি লাগিয়ে টিপ ছাপ নেন নিত্য গোপাল মন্ডল৷ তিনি জিজ্ঞাসা করলে ওই নেতা জবাব দেন, এই কাগজটাই বৃদ্ধ ভাতার৷ এখানে সই করলে বৃদ্ধ ভাতা চালু হওয়ার আশ্বাস দেন তৃণমূল নেতা৷

এরপরই ওই বৃদ্ধা বাড়ি চলে আসেন৷ পরিবারকে বিষয়টা জানালে সদস্যরা তৎক্ষণাৎ জমি রেজিস্ট্রি যান৷ অভিযোগ, সেখানে উপপ্রধানের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন বৃদ্ধা ও তাঁর পরিবার৷ এমনকি বৃদ্ধার পরিবারের সদস্যদের নাকি মারধর করে নিত্য গোপালের লোকজন৷

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: