‘ড্রাগের নেশা করত,’ বাগুইআটির মৃত ২ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর নামে আপত্তিকর মন্তব্য সৌগতর! পাল্টা দিলীপ

 

বিবিধ ডট ইন: বাগুইআটির খুন হওয়া দুই পরিক্ষার্থীর ‘খুনি’ মূল অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিস। এখনও এই ঘটনা ঘিরে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি৷ নানা মহলে দাবি উঠছে অভিযুক্তের ফাঁসির। এরই মাঝে মৃত দুই পড়ুয়াকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তাঁর দাবি, মৃত ছাত্ররা ড্রাগের নেশায় আসক্ত ছিল। এই মন্তব্যের বিরোধিতা করে পালড়া তোপ দেগেছেন দিলীপ ঘোষ।

গত রবিবার বরানগরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন দমদমের সাংসদ সৌগত। সেই অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘খুন হওয়া যুবকেরা ড্রাগের নেশা করত। N-10 ট্যাবলেট খেত।’ শুধু তাই নয়, কীভাবে মৃত অতনু দে বাইক কেনার পঞ্চাশ হাজার টাকা পেল, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। বলেন, ‘ছেলেরা ভুল পথে যাচ্ছে। আই চাই সমস্ত ছেলেদের সমাজের মূলস্রোতে ফেরাতে। ছেলেরা এমন কিছু যেন না করে যাতে বাবা-মাকে লজ্জিত হতে হয়।’

সাংসদের এই মন্তব্যে স্বভাবতই বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। এই মন্তব্য মোটেই ভালোভাবে নিচ্ছেন না এলাকার বাসিন্দারা। এদিকে সৌগত রায়ের মন্তব্যে পালটা দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘উনি কি সাপ্লাই করতেন? প্রকাশ্যে এই কথা বলা উচিত নয়। রাজনীতি ছেড়ে রাঁচি থেকে ঘুরে আসা উঠিত। ৭২ পেরলে যা হয়, ওনার সেই অবস্থা।’

সৌগত রায়কে কটাক্ষ করে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘সৌগতবাবু সকলের ক্যারেক্টার সার্টিফিকেট দিয়ে বেড়ান, নিজেরটা দেন না কেন? উনি তো একজন অচেনা লোকের থেকে টাকার বান্ডিল নিয়ে থ্যাঙ্ক ইউ বলেছিলেন।’ এছাড়াও সুজন বলেন, মৃতের চরিত্র বিশ্লেষণ করা এই সরকারের স্বভাব!

  1. বাগুইআটি জোড়া হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিসের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্য-প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন বাম নেতারা। তবে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ উঠতেই সাসপেন্ড করা হয়েছিল বাগুইআটি থানার ওসিকে। সেই সঙ্গে সাসপেন্ড করা হয় বাগুইআটি থানার তদন্তকারী অফিসারকেও।

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: