India-England Test Series: সাক্ষাৎকারে সম্বরণ বন্দ্যোপাধ্যায়

এখনই শেয়ার করুন

ভিনদেশে যুদ্ধজয়ের পর এবার স্বদেশ রক্ষা করতে মরিয়া ভারতীয় ক্রিকেট দল। ভারত কি পারবে ‘ব্রিটিশ আক্রমণ’ প্রতিহত করতে ? ৫ ফেব্রুয়ারি চেন্নাইতে আয়োজিত হতে চলেছে প্রথম টেস্ট। তারই আগে বিবিধ ডট ইন-এর তরফে অর্পিত চৌরাশিয়ার সঙ্গে আড্ডায় প্রাক্তন ক্রিকেটার সম্বরণ বন্দ্যোপাধ্যায়

 

বিবিধ ডট ইন: সারাবিশ্বে একটা ভয়াবহ মহামারীর পর ভারতবর্ষের মাটিতে প্রথম আন্তর্জাতিক স্তরে কোনও ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজিত হচ্ছে, এটি নিয়ে আপনার কী মত?

সম্বরণ: মোটামুটিভাবে সারা বিশ্বেই শুরু হয়ে গেছে ক্রিকেট। প্রথম শুরু করেছে ইংল্যান্ড-ওয়েস্টইন্ডিজ। তারপর অনেকগুলো সিরিজ হয়ে গেল। ইন্ডিয়া-অস্ট্রেলিয়া সিরিজও হল। ভারতবর্ষে এটা প্রথম। চেন্নাইতে হচ্ছে। প্রথম টেস্টটা দর্শকশূন্যই রাখা হচ্ছে। দ্বিতীয় টেস্ট থেকে ৫০% দর্শককে অনুমতি দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। তবে আমার মনে হয়, এটাই শুরু করার ঠিক সময়। কোভিডের দাপট একটু নিম্নমুখী। প্রপার বায়ো-বাবল মেনে খেলা শুরু করা যেতেই পারে।

 

বিবিধ ডট ইন: চেন্নাই ও আমেদাবাদে টেস্ট আয়োজন করা হচ্ছে। দুটি জায়গার পিচ ও আবহাওয়া ক্রিকেটীয় পরিভাষায় কেমন থাকতে পারে?

সম্বরণ: চেন্নাইতে এইসময় মাঝেমধ্যে বৃষ্টি হয়, তবে খেলাটা তো ৫তারিখ থেকে। মনে হয় না, বৃষ্টি হবে। এবং পিচ… যেহেতু ইন্ডিয়াতে খেলা। একটু টার্নিং পিচ হলেও হতে পারে। হয়তো প্রথম দিন থেকেই বল ঘুরবে না; দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিনের পরে সুবিধা হতে পারে। আর আমেদাবাদেও দল একই স্ট্রাটেজি নেবে। ইংল্যান্ড টিম কম্পারেটিভলি স্পিনে সামান্য দুর্বল। যেকোনও টিম যদি স্পিন ট্যাকল করতে না পারে তবে দলের খুব টাফটাইম যাবে। তবে ইংল্যান্ড কিন্তু খুব ভাল ক্রিকেট খেলছে। ইংল্যান্ড-ইন্ডিয়া টেস্ট সিরিজ তাই যথেষ্ট জমজমাট হবে।

 

বিবিধ ডট ইন: এই পিচ কি বোলারদের পক্ষে বেশি সুবিধাজনক হবে? নাকি ব্যাটসম্যানের পক্ষে?

সম্বরণ: বোলার ও ব্যাটসম্যান উভয়ই উপকৃত হবে। বেশি গ্রাসি পিচ থাকবে না; আবার ফ্ল্যাট পিচও থাকবে না। কাজেই দু’পক্ষকেই নিজের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য যথেষ্ট লড়াই করতে হবে।

 

বিবিধ ডট ইন: আর্চার না বুমরাহ? কে বেশি বিধ্বংসী হতে চলেছেন এই পিচে??

সম্বরণ: দেখুন, ওভাবে বলা মুশকিল। দু’জন দু’রকমের বোলার। বুমরাহ বেসিক্যালি যা বল করে শোল্ডারের জোরে এবং ইনসুইং হয়। আর জোফ্রা আর্চারের খুব সুন্দর অ্যাকশন, খুব ভাল গতি। দু’জনেই টপক্লাস বোলার, দু’রকমের বোলার। ওভাবে বলা সত্যিই খুব মুশকিল।

 

বিবিধ ডট ইন: ডে-নাইট টেস্টের ক্ষেত্রে একটা তো ডিউ-ফ্যাক্টর ম্যাটার করে। সূর্যাস্তের পরে শিশিরে কি সমস্যা হতে পারে?

সম্বরণ: এটা এক্ষুনি বলা যাচ্ছে না। বরং দক্ষিণ ভারতে মোটামুটি গরম। শুধু দক্ষিণ নয়, আমেদাবাদ অর্থাৎ পশ্চিম। দক্ষিণ-পশ্চিম ভারতেই আবহাওয়া উষ্ণ। খুব একটা শিশির পড়ে বলে আমার মনে হয় না। দেখা যাক!

 

বিবিধ ডট ইন: জো রুট তাঁর ১০০তম টেস্ট ম্যাচ খেলতে চলেছে। সাম্প্রতিককালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে বড় ইনিংসও খেলেছেন। যথেষ্ট ভাল ফর্মে আছেন। জো রুট কি ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে বড়ো মাথাব্যথার কারণ হতে পারে?

সম্বরণ: জো রুট একজন ক্লাস ব্যাটসম্যান। লাল বলে বেসিক্যালি বিরাট কোহলি, স্টিভ স্মিথ, জো রুট এইযুগের অন্যতম বলাই যায়। জো রুট স্পিন এবং পেস বোলিংয়ের বিরুদ্ধে যথেষ্ট স্বাচ্ছন্দ্য। ইংল্যান্ডের লাল বল ক্যাপ্টেনও রুট। আমি আশা করি ও যথেষ্ট সাকসেসফুল হবে।

 

বিবিধ ডট ইন: ইন্ডিয়া টিমে কজন পেসার আর কজন স্পিনার খেলানো হতে পারে বলে আপনার মনে হয়??

সম্বরণ: দুটো পেসার, দুটো স্পিনার ও একটা অলরাউন্ডার খেলাতে পারে। হার্দিক পান্ডিয়াকে নিলে অলরাউন্ডার সমস্যাটাও মিটে যাবে আমার মনে হয়।

 

বিবিধ ডট ইন: আচ্ছা টিমে ঋষভ পন্থ ও ঋদ্ধিমান সাহাও রয়েছে। প্রথম ১১য় কার সম্ভাবনা বেশি?? কার পারফরমেন্স টিমের জন্য বেশি এফেক্টিভ হবে??

সম্বরণ: প্রথম দুটো টেস্টে কিপিং-গ্লাভস চোখ বুঁজেই ঋষভের হাতে থাকবে। ঋদ্ধি রিসার্ভে থাকবে। পরবর্তীতে কোনো চেঞ্জ হলে দেখা যাবে।

 

বিবিধ ডট ইন: রবীন্দ্র জাদেজা ও মহম্মদ শামির অনুপস্থিতি কতোটা ভোগাবে টিম ইন্ডিয়াকে?

সম্বরণ: না না, ইন্ডিয়ার রিসার্ভ টিম এতো ভালো। যদি আমরা একটু অস্ট্রেলিয়া সিরিজের দিকে তাকাই প্রায় ৩য় টিম নিয়ে খেলেও আমরা জিতেছি। টিমে ডেব্যউ করে অনেকে টিমের অপরিহার্য অঙ্গ হয়ে উঠেছে। সুতরাং ইন্ডিয়ান রিসার্ভ বেঞ্চ যথেষ্ট স্ট্রং, যেটা ওয়ার্ল্ডে এই মুহূর্তে কারুর নেই। কারুর অনুপস্থিতির কারণে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

 

বিবিধ ডট ইন: যেকোনো টেস্ট সিরিজে টসটা তো একটা ফ্যাক্টর। ধরা যাক, ইন্ডিয়া টস হারলো এবং ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৩৫০র উপর রান তুললো। সেই মুহূর্তে ভারতীয় টিমের স্ট্রাটেজি কী হবে?

সম্বরণ: ৩৫০র উপর বা ৪০০ করা ইংল্যান্ডের পক্ষে মুশকিল হবে। যাই হোক, স্ট্রাটেজি সেই অর্থে নতুন কিছুই না। ইন্ডিয়ান ব্যাটিং লাইন-আপকেও ভালো প্রদর্শন করতে হবে। ফার্স্ট ইনিংসে ৪০০ করা মানে উইকেট ভালো আছে। সুতরাং যেকোনো টেস্টের প্রথম ইনিংসে বড় রান করলে, ইন্ডিয়াকেও সেইভাবেই ব্যাটিং করতে হবে।

 

বিবিধ ডট ইন: কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন নির্দেশাবলীতে বলা হয়েছে, মাঠে ১০০শতাংশ দর্শক রেখে ম্যাচ করা যেতে পারে। তারপরেই পরিকল্পনা শুরু হয়েছে চেন্নাইয়ের দ্বিতীয় টেস্টে দর্শক ঢুকতে দেওয়ার। এই বিষয়টি নিয়ে কি মতামত??

সম্বরণ: অসুবিধার কিছু নেই। কারণ অস্ট্রেলিয়া সিরিজে আমরা দেখেছি মাঠে ৫০% দর্শক নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে। এখানেও কোভিড প্রোটোকল মেনে আয়োজন করলে কোনও অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

 

বিবিধ ডট ইন: রেজাল্ট কি হতে পারে?? সিরিজটা ইন্ডিয়া জিতবে না হারবে? বা জিতলেও কত হতে পারে? হোয়াইটওয়াশের সম্ভাবনা আছে কি?

সম্বরণ: ৩-১ হতে পারে। ড্র হওয়ার সম্ভাবনা কম। হোয়াইটওয়াশ সম্ভব কিনা বলতে পারবো না, তবে ইন্ডিয়া সিরিজ জিতবে।


এখনই শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।