নির্যাতিতার বাবাকে খুন জামিনে মুক্ত অভিযুক্তের, ফের শিরোনামে হাথরস

বিবিধ ডট ইন: কিছুদিন আগের কথা, সেপ্টেম্বর ২০২০, এক দলিত মেয়ের ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় খবরের শিরোনামে ছিল উত্তরপ্রদেশের হাথরস। অভিযোগ, নির্যাতিতার মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার বদলে যোগীরাজ্যের পুলিশ কেরোসিন দিয়ে দেহ পুড়িয়ে দেয়। সেই সময় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ প্রশাসনের সমালোচনায় সরব হয় গোটা দেশ। এবার আবারও আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু উত্তরপ্রদেশের হাথরস।

শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত এবং বর্তমানে জামিনে মুক্ত এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নির্যাতিতার বাবাকে গুলি করে খুনের ঘটনা ঘটল হাথরসে৷

২০১৮ সালে নির্যাতিতা বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে শ্লীলতাহানির মামলায় অভিযুক্ত গৌরব শর্মা মাসখানেক কারাবাসের পর স্থানীয় আদালতে জামিনে মুক্ত হন। গত ১ মার্চ, সোমবার সন্ধ্যাবেলা নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে গৌরবের পরিবারের তুমুল তর্কাতর্কি আরম্ভ হয়। এর পরই গৌরব শর্মা নির্যাতিতার বাবাকে লক্ষ করে গুলি চালান এবং হাসপাতালে নিয়ে যাবার পথে তাঁর মৃত্যু হয় বলে, সুত্রের খবর ৷

হাথরসের পুলিশ সুপার বিনীত জয়সওয়াল বলেন, ‘যে ব্যক্তি মারা গিয়েছেন তিনি গৌরব শর্মার বিরুদ্ধে ২০১৮ সালে মেয়ের শ্লীলতাহানির মামলা দায়ের করেন। সেই ঘটনায় অভিযুক্ত গৌরব শর্মা কিছুদিন জেল খেটে বর্তমাবে জামিনে মুক্ত। সেই সময় থেকেই উভয় পরিবারের মধ্যে টানাপোড়েন লক্ষ্য করা যায়।’

সূত্রের খবর, সোমবার সন্ধেবেলা গ্রামের একটি মন্দিরে প্রার্থনা করতে যান অভিযুক্তের স্ত্রী ও কাকিমাসহ পরিবারের বেশ কিছু জন। সেই মন্দিরে উপস্থিত ছিলেন নির্যাতিতাও। সেখানে উভয় পরিবারের মধ্যে তর্ক হয়। এমন সময় এই গণ্ডগোলের মধ্যে ঢুকে গৌরব নির্যাতিতার বাবাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এর আগে যৌন হেনস্থা, এবার বাবাকে গুলি করে খুন, বিচার চেয়ে আবেদন তরুণীর।

লিখলেন সায়ন্তন মণ্ডল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *