আরামবাগ মহকুমা হাসপাতালে ওষুধের ঘাটতি, নাজেহাল রোগীরা

 

বিবিধ ডট ইন: কোভিড পরিস্থিতিতে ওষুধের হাহাকার আরামবাগ মহকুমা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে। রাজ্যে করোনা আক্রান্তের গ্রাফ রোজই উর্ধ্বমুখী। একের পর এক করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। এই পরিস্থিতিতে সরকারি হাসপাতালে ওষুধ না মেলায় রীতিমত নাজেহাল রোগীরা। মিলছে না প্যারাসিটামল ট্যাবলেট, এমোক্সিসিলিন ট্যাবলেটের মতন ওষুধও।

এদিকে এই হাসাপাতালে বহু দূর দূরান্ত থেকে রোগীরা আসেন বহির্বিভাগে চিকিৎসা করাতে। লম্বা লাইন পড়ে যায়। ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পর কাউন্টারে এসে যখন শোনেন প্যারাসিটামল নেই, নেই অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ ফলতই বিপাকে পড়ছেন তাঁরা।

জানা যাচ্ছে, প্যারাসিটামল ট্যাবলেট, এমোক্সিসিলিন, অ্যান্টিবায়োটিকের পাশাপাশি স্যালাইনের সরবরাহের ঘাটতি রয়েছে এই হাসপাতালে। চিকিৎসকরা রোগীদের বলে দিচ্ছেন বাইরে থেকে ওষুধ কিনে নেওয়ার কথা। রীতিমত হতাশ হয়ে তাদের বাড়ি ফিরে যেতে হচ্ছে। আর না হলে বাইরে থেকে কিনে নিতে হচ্ছে।

আরামবাগ মহকুমা হাসপাতাল ও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ৬ জন ডাক্তার ও ৬ জন স্টাফ নার্স কোভিড আক্রান্ত। এ প্রসঙ্গে কোনও বিবৃতি পাওয়া যায়নি হাসপাতালের তরফে। ওষুধ না পেয়ে জেরবার এক রোগীর আত্মীয়ের কথায়,

আমরা রোগী নিয়ে এসে খুবই সমস্যায় পড়ছি। একে ঔষুধ নেই। তার উপর আবার স্যালাইনের জোগান কম। দ্রুত যেন সরকার বিষয়টিতে নজর দেয় তাই চাইব। কারণ বাইরে থেকে ওই দামী ওষুধ কেনার সামর্থ আমাদের নেই।

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: