স্মৃতিভ্রম, নাকি দাম্পত্যকলহ? হ্যারোগেট শহরে লুকিয়ে ছিলেন ‘নিঁখোজ’ আগাথা ক্রিস্টি!

 

বিবিধ ডট ইন: ৩ ডিসেম্বর ১৯২৬ রহস্যজনক ভাবে তাঁর সানিংডেলের বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যান ৩৬ বছর বয়সী ব্রিটিশ রহস্য উপন্যাসিক আগাথা ক্রিস্টি। ৪ ডিসেম্বর ১৯২৬, সানিংডেলের থেকে ঘন্টাখানেকের দূরত্বে নিউল্যান্ডের রাস্তার পাশে উদ্ধার হল তাঁর পরিত্যক্ত গাড়ি। অথচ বিন্দুমাত্র সন্ধান পাওয়া গেলনা লেখকের। এদিকে ইংল্যান্ড জুড়ে রটে গেল, আগাথার স্বামী আর্চিবাল্ড তাঁকে ডিভোর্সের জন্য জোরাজুরি করছিলেন, রাজি না হওয়ায় আর্চিবাল্ডই আগাথাকে হত্যা করে গুম করেছে।

২৪ ডিসেম্বর, ১৯২৬ নিখোঁজ হবার ১১ দিন পর হ্যারোগেট শহরের একটি হোটেল থেকে সন্ধান মেলে ‘টেরেসা নীলি’ ছন্দনামে বসবাসকারী আগাথার। কেনই বা এই ছন্দনাম ধারণ, কিভাবেই বা তিনি এই হোটেলে পৌঁছলেন, তা আজও রহস্য, যদিও আগাথা দাবী করেন, তাঁর স্মৃতিভ্রম হয়েছিল।

আগাথা স্মৃতিভ্রমের দাবী করলেও, তাঁর এই অন্তর্ধানের পেছনে দাম্পত্যের টানাপোড়েনকেই দায়ী করেন অনেকে। টেরেসা নীলি, যে ছদ্মনামে হোটেলে বসবাস করছিলেন আগাথা, এই টেরেসা নীলি ছিলেন তাঁর স্বামীর পরিচারিকা। অনেকে মনে করেন, পরিচারিকার সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছিলেন তাঁর স্বামী। সেই প্রতিশোধ নিতেই তাঁর এই অন্তর্ধান।

যদিও ক্রিস্টির নিঁখোজ রহস্য কখনওই সমাধান হয়নি। নিখোঁজ হবার দিন সকালে তাঁকে রাস্তায় হাঁটতে দেখা এক প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান অনুযায়ী,

তাঁকে কিছুটা বিভ্রান্ত দেখাচ্ছিল। তাঁর হাঁটার ভঙ্গিও ছিল অস্বাভাবিক। সেই সময় পরনে ছিল পাতলা একটি জামা।

অনেকেই মনে করেন, সম্প্রতি মায়ের মৃত্যু, দাম্পত্য কলহ ইতাদিতে মানসিক অবসাদগ্রস্ত আগাথার হয়তো সত্যিই স্মৃতিভ্রম হয়েছিল।

লিখেছেন সায়ন্তন মন্ডল

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: