কলকাতা বসুর কড়চা: ৬

বিবিধ ডট ইন-এর ব্লগ বিভাগে ফের কলম ধরলেন কলকাতা বসু। এবার সেকেন্ড এডিশনফার্স্ট এডিশন যাঁরা পড়েননি তাঁদের জন্য:

কলকাতা বসুর কড়চা: ১  কলকাতা বসুর কড়চা: ২  কলকাতা বসুর কড়চা: ৩  কলকাতা বসুর কড়চা: ৪  কলকাতা বসুর কড়চা: ৫

কলকাতা বসুর কড়চা: ৬

কলকাতা বসু কার্ল মার্ক্সকে নিয়ে বিস্তর পড়াশোনা করেও এ কথা মনে প্রাণে বিশ্বাস করে যে শ্রেণী সংগ্রাম, সর্বহারা, বিপ্লব ইত্যাদি জিগির তুলে উগ্র মার্ক্সবাদী বাঙালি শিক্ষিত সমাজ নিজের নিজের সুযোগ-সুবিধের প্রতিষ্ঠাতে নিবেদিত প্রাণ। এককালে পশ্চিমবঙ্গের মার্ক্সবাদী সরকার পিটিয়ে খালাস করেছে মাওপন্থী খ‍্যাঁকশাল এবং পরবর্তী সময় ছিন্নমূল দলের সমর্থকদের। জমি, ফ্ল্যাট, বৃত্তি ও অনুদান বিলি করেছে দলের ও ফ্রন্টের অনুগামীদের।

এদেশের ভামপন্থী মার্ক্সপরায়ণরা বিগত বিধানসভা নির্বাচনে টোটাল হেরে গিয়েও তাঁদের জ্যাঠামার্কা খানিক দুর্বোধ্য শাস্ত্রগ্রন্থাদির নতুন বিচার করার কোনও আগ্রহ দেখান না। সামাজিক মাধ্যমে উদারপন্থী বা লিবারালদের তেড়ে খিস্তি করে মনের জ্বালা মেটান এবং স্বরচিত বিচিমূল তত্ত্ব আওড়ে চলেন। কলকাতা বসুর কাছে এই বঙ্গের বাঙালির মার্ক্সপ্রীতি যুক্তি ও জিজ্ঞাসাবিমুখ যা ব্যক্তির নৈতিক দায়িত্বে এবং সামর্থে আস্থাহীন।

তার ভাতৃপ্রতিম ম্যাভেরিক গুপ্ত যদিও এবারের ভাম, ডিসগ্রেস ও ইন্ডিয়ান পিকিউলিয়ার ফ্রন্ট জোট প্রার্থীর হয়ে বারোভাতারি “অ্যাস বুক” সোশ্যাল সাইটে প্রচার করেছে এবং উত্তমগ্রামে তার বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট দিয়েছে সেই প্রার্থীকেই। কিন্তু এখন মোহভঙ্গ হয়েছে তার। সস্তার হুইস্কি চার্লস বুকোস্কির কবিতাসহ পান করতে করতে অ্যাস বুকে সেই কবিতা আপলোড করেছে “ফিলিং হোপলেস” ইমোজি সহ। কবিতার অংশবিশেষ―

I am asked to hide
my viewpoint
from them
for fear of their
fear.
age is no crime
but the shame
of a deliberately
wasted
life
among so many
deliberately
wasted
lives
is.

ম্যাভেরিক ও কলকাতা’র যৌনাঙ্গের কুঞ্চিত কেশবৎ আন্তর্জালিক জালি ওয়েবজিন বন্ধ হয়ে গিয়েছে পুঁজির অভাবে। তারা এখন তাদের যথাক্রমে পড়াশোনা ও চাকরি সামলে নিজেদের লগ্নিতে নতুন ওয়েবজিন বা আন্তর্জালিক কনটেন্ট তৈরির পরিকল্পনার জন্য বহুকাল স্থগিত মদ-মাংসের আসর বসানোর জোর পরিকল্পনায় আছে।

এর মধ্যেই কলকাতা বসুর সাথে তার এক প্রাক্তন প্রেয়সী কাম বাল্যবান্ধবীর দেখা হয়েছিল, যে বিয়ের পর থেকেই তার শ্বশুরকূলের “ভামপন্থা ইজ সুপার কুল ” পার্টিলাইন মেনে স্বঘোষিত ভামপন্থী এবং ইকো-ফেমিনিস্ট। সে কলকাতা বসুর সংগ্রহ থেকে “বাঙালির ভামজ্বর” বইটি হস্তগত করেছে। কলকাতার তাই নিয়ে কোন হেলদোল নেই… কারণ, কলকাতা কামপন্থা আর ওয়োরুম ছাড়া কোনও বিপ্লবে বিশ্বাস করে না।

লিখেছেন কলকাতা বসু

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: