‘উধাও’ কয়েক লক্ষ টাকার বিদেশি পাখি, উঠছে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

এখনই শেয়ার করুন

বিবিধ ডট ইন: ২০০৯ সালে কমন মার্মোসেট ও ২০১৫ সালে ১১ টি তক্ষক চুরি যাবার পর আলিপুর চিড়িয়াখানায় ফের চুরি। সূত্রের খবর, চিড়িয়াখানা থেকে খোওয়া গিয়েছে Kell Billed Toucan নামক বিদেশি প্রজাতির তিনটি পাখি। যেগুলির বাজার মূল্য ১৫ লক্ষ টাকারও বেশি বলে সূত্রের খবর।

২০১৫ সালে কলকাতা চিড়িয়াখানার রেপটাইল হাউস থেকে চুরি যায় ১১টি তক্ষক। তবে সেবার রেপটাইল হাউসের বাইরের ঝোপ থেকেই উদ্ধার হয়েছিল সাতটি তক্ষক। এরকমই ২০০৯ সালে চিড়িয়াখানা থেকে খোওয়া যায় আটটি কমন মার্মোসেট প্রজাতির বাঁদর।

একদা এই শহরেই বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নিজ বাড়িতেই ‘চিড়িয়াখানা’ খুলে বসেছিলেন বাগুইআটির বাসিন্দা,বছর আশির শক্তিপদ গুহ। ২৩ শে জানুয়ারি ২০১৪, বিশেষ সুত্রে খবর পেয়ে শুল্ক দফতর ও ওয়াইল্ড লাইফ কন্ট্রোল ব্যুরোর আধিকারিকরা বাগুইআটির ৪৮/১ দক্ষিণপাড়া রোডের বাড়িতে হানা দিতেই উদ্ধার হয় অসংখ্য কমন মার্মোসেট সহ ৪টি শিম্পাঞ্জি।

সম্প্রতি মধ্যমগ্রামেও এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে সিংহশাবক উদ্ধার করেন বনদফতরের কর্তারা। পূর্বে মার্মোসেট চুরি, তক্ষক চুরি, বাঘ সিংহের ক্রসবিড থেকে শুরু করে শিবা নামক বাঘের প্রকাশ্যে নরভক্ষণের সাক্ষী এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম এই চিড়িয়াখানায়। এবার বিদেশি পাখি চুরির ঘটনায় চিড়িয়াখার নিরাপত্তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। যদিও এ প্রসঙ্গে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঘটনাটির তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ওয়াটগঞ্জ পুলিশ এই তদন্তের দায়িত্বে রয়েছে।

সূত্রের খবর, এদিন খাঁচায় চারটে পাখি ছিল। সেগুলির মধ্যে তিনটে অসুস্থ থাকার জেরে ভেতরে আলাদাভাবে রাখা ছিল এবং অন্য একটি ছিল দর্শকদের জন্য। বৃহস্পতিবার সকালে খাঁচার জাল কাটা দেখা যায়। অসুস্থ পাখিগুলো ছিল না তখন। অথচ কাছাকাছিই ছিলেন নিরাপত্তা রক্ষী।

ছবি ও লেখা: সায়ন্তন মন্ডল


এখনই শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *