মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে ‘সঞ্জীবনী’ চন্দননগরে

বিবিধ ডট ইন: বিভিন্ন সঙ্কটের পরিস্থিতিতে কখনও এককভাবে, কখনও আবার সঙ্ঘবদ্ধ হয়ে মানুষের পাশে থাকার অঙ্গীকার এবং তা পূরণের নানা ঘটনার সাক্ষী আমরা। বিক্ষিপ্তভাবে হলেও শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ বরাবরই চেষ্টা করেছেন পাশে থাকার। তবে কোভিডের জেরে সেই সঙ্কট আরও জোরালো হয়েছে। এই অবস্থায় প্রবীণ নাগরিকসহ সমাজের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া ‘ব্রাত্য’ মানুষ খাদ্য, বাসস্থানের পাশাপাশি জীবন-মৃত্যু নিয়ে ধন্দের মুখে পড়ছেন। এই পরিস্থিতিতে সাধ্যমতো তাঁদের বিনামূল্যে টিকাকরণের উদ্যোগ নিয়েছে চন্দননগর বোড় কালীতলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটি।

মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে 'সঞ্জীবনী' চন্দননগরে

আরও পড়ুন: জগদ্ধাত্রী পুজো উপলক্ষে মানবিকতার নজির চন্দননগরে

সরকার উদ্যোগী হয়েছে করোনামুক্ত সমাজ গড়তে। যদিও নানা কারণে এখনও পর্যন্ত সেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়নি। এবার এই উদ্যোগে সামিল হয়েছে চন্দননগরের বোড় কালীতলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পূজা কমিটি। যদিও উদ্যোক্তারা বিনয়ের সুরে বলেছেন, এটা একটা প্রচেষ্টামাত্র। করোনামুক্ত সুস্থ সমাজ গড়ে তুলতে সবাইকেই হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করতে হবে।

মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে 'সঞ্জীবনী' চন্দননগরে

চলতি বছরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বোড় কালীতলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পূজা কমিটি অঙ্গীকার নিয়েছিল, বোড় কালীতলার বাসিন্দাদের মধ্যে যাঁরা নানা অসুবিধার কারণে টিকা নিতে পারেননি, তাঁদের আবেদনের ভিত্তিতে বিনামূল্যে টিকা প্রদান করবে।

পুজো কমিটির উদ্যোক্তা সবুজ গুপ্ত জানান,

মোট ৩৪জনের টিকা দানের ব্যবস্থা করেছি আমরা। দুস্থ, অসুস্থ, বয়স্ক, গরিব, যাঁরা সরকারি ভ্যাকসিন এখনও পাননি এবং তাঁদের পক্ষে কিনেও ভ্যাকসিন নেওয়া কোনওভাবে সম্ভব নয়। উপযুক্ত প্রমাণসহ আবেদনের ভিত্তিতে তাঁদের ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে। মেডিকা সুপারস্পেসালিটি হসপিটাল ও ‘আন্তরিক’ নামে এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সহযোগিতায় আমরা সামান্য চেষ্টা করেছি মাত্র।

মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে 'সঞ্জীবনী' চন্দননগরে

বোড় কালীতলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটি প্রত্যেক বছর নানান সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন করে। এবছর কোভিডকালে অক্সিজেনের ব্যবস্থাও তারা করেছে। সেই ধারা এখনও অব্যাহত রয়েছে। আর সেই উদ্যোগে স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতার কথাও বলেছেন উদ্যোক্তারা।

মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে 'সঞ্জীবনী' চন্দননগরে

প্রতি বছর পুজো তো রয়েছেই, তার পাশপাশি যদি মানুষের জন্য কিছু করা যায়, সেই ভাবনা এর আগেও বাস্তবায়িত করে দেখিয়ছে চন্দননগরের ওই পূজা কমিটি। এ প্রসঙ্গে সবুজবাবু আরও বলেন,

একটি পুজো কমিটি শুধুমাত্র পুজো করা, প্যান্ডেল করার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে যদি এইরকম কিছু সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন করে, তাহলে আগামী দিনে আশা করি আমরা করোনামুক্ত সুন্দর পৃথিবী দেখতে পাব। তাছাড়া আমরা সবাই যদি যে যেমনভাব পারি, একসঙ্গে এগিয়ে না আসি, তাহলে সরকারের উদ্যোগও সফল হবে না। বিভিন্ন সংস্থা, পাড়ার ক্লাব, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সবার মিলিত আয়োজনে শুভ কাজ পরিপূর্ণতা পায়।

মেলেনি সরকারি টিকা! দুস্থ, প্রবীণদের বিনামূল্যে 'সঞ্জীবনী' চন্দননগরে

কথায় বলে, ‘সাগরে শিশির পড়ে’। অনেকেই এই সুরে সুর মিলিয়ে বলবেন, সত্যিই তো, একবিন্দু শিশিরে কিচ্ছু যায় আসে না সাগরের। তবে এটাও ভুললে চলবে না, এক-একবিন্দু শিশির জমেই তৈরি হবে সাগর। আশার ডানায় ভর করেই তো আমরা বাঁচি। আমাদের বাঁচা-মরার মাঝে ঢাল হাতে দাঁড়ায় চন্দননগর বোড় কালীতলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটির মতো কেউ বা কারা। এই দুর্যোগের পরিস্থিতিতে এও বা কম কীসে?

লিখেছেন মধুমিতা সিনহা

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: