এবার ফুচকা-ঝালমুড়ি বেচতেও বাধ্যতামূলক ফুড লাইসেন্স!

 

বিবিধ ডট ইন: এবার থেকে পশ্চিমবঙ্গের রাস্তায় ঝালমুড়ি, ফুচকা মায় কাটা ফল বিক্রি করতে গেলেও বাধ্যতামূলক ভাবে বিক্রেতার ফুড লাইসেন্স থাকতে হবে, খুব শীঘ্রই এমনই সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। এর আগে, খাদ্য সুরক্ষা আইন নিয়ে রাজ্যে এতটা কড়াকড়ি জারি না থাকলেও, সম্প্রতি খাদ্যসামগ্রী বিক্রেতাদের রেজিস্ট্রেশন করাতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর!

এই উদ্দেশ্যে, ইতিমধ্যেই রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়োগ করা হয়েছে ফুড সেফটি অফিসার। সূত্রের খবর, খাদ্যসামগ্রী বিক্রেতাদের ‘নজরে’ রাখার দায়িত্ব তাঁদের হাতেই ন্যাস্ত থাকবে। অর্থাৎ তাঁরাই নিয়মিত খবরাখবর রাখবেন, খাদ্যসামগ্রী বিক্রেতাদের রেজিস্ট্রেশন লাইসেন্স আছে কিনা।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে ‘ফুড স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড সেফটি অথরিটি অব ইন্ডিয়া’ র অধীনে গোটা দেশে খাদ্য সুরক্ষা আইন কার্যকর হয়। কেন্দ্রীয় আইন রাজ্যে রাজ্যে স্বাস্থ্য দফতর কার্যকর করে। এই আইন অনুযায়ী যে কোনও খাদ্যদ্রব্য বিক্রি করলেই রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক। বার্ষিক ১০০ টাকা করে দিতে হয় ছোট বিক্রেতাদের। আর বার্ষিক ব্যবসা ১২ লাখ টাকা বা তার বেশি হলেই ফুড লাইসেন্স বাধ্যতামূলক।

রাজ্যে ফুড রেজিস্ট্রেশন ও লাইসেন্স বাধ্যতামূলক করতে ২০১৮ সালেই উদ্যোগী হয় রাজ্য। সেই সময় রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ১৪০ জন ফুড অফিসার নিয়োগ হয়। কিন্তু এর পরে করোনা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্য দফতর এই ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দিতে পারেনি।

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: