একরাতে সাত খুন, স্বাধীন ভারতে প্রথম কোনও মহিলার ফাঁসি!

এখনই শেয়ার করুন

বিবিধ ডট ইন: স্বাধীন ভারতে প্রথম মহিলা হিসেবে ফাঁসি হতে পারে উত্তরপ্রদেশের শবনম আলির (৩৮)।স্বাধীন ভারতে প্রথম মহিলা কয়েদি শবনমের ফাঁসির প্রস্তুতি চলছে উত্তরপ্রদেশের মথুরার জেলে। ১৫০ বছর আগে মহিলাদের ফাঁসির জন্য তৈরি ঘরেই প্রথমবার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হবে বলে জানা গিয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত অপরাধীর কোনও ফাঁসির দিন ধার্য হয়নি।

পেশায় শিক্ষিকা স্নাতকোত্তর শবনম অষ্টম শ্রেনী পাশ কাঠের মিস্ত্রি সেলিমের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ায় তুমুল আপত্তির ঝড় ওঠে শবনমের পরিবারে । ২০০৮ সালের ১৫ এপ্রিল মধ্যরাত, প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে কুড়ুল দিয়ে কুপিয়ে শবনম খুন করে নিজের বাবা, মা, দাদা, বৌদি, দিদি ও দিদির ছেলে’কে, রেহাই পায়নি তার ১০ মাসের সদ্যোজাত ভাইপোও । তবে অনেক ফন্দি এঁটেও পুলিসের নজরকে ফাঁকি দিতে পারেনি এই যুগল । ২০১০ সালের ১৪’ই জুলাই জেলা ও দায়রা আদালত মৃত্যুদণ্ড দেয় শবনম ও সেলিম’কে । পরবর্তী কালে সুপ্রিম কোর্টে এই রায় কে চ্যালেঞ্জ করে আর্জি জানালে তাদের সেই আর্জিও খারিজ হয়ে যায় । রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় তাদের প্রাণভিক্ষার আবেদন নামঞ্জুর করেন ।

জানা গিয়েছে সম্প্রতি শবনমের ফাঁসি খারিজ করার আবেদন জানিয়েছে তার নাবালক পুত্র । খুনের ঘটনার সময়ই ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল শবনম। জেলেই জন্ম হয় ছেলের। ৬ বছর বয়স হলে তাকে দত্তক নেয় শবনমেরই বান্ধবী। তাঁর বর্তমান অভিভাবক উসমান জানিয়েছেন পড়াশুনায় মেধাবী শবনমের ছেলে পড়ে শহরের নাম করা এক স্কুলে । শবনমের পারিবারিক সমস্ত সম্পত্তির উত্তরাধিকার সে। যদিও সেই সমস্ত সম্পত্তি ভাল কাজে দান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সাত খুনে দোষী সাব্যস্ত শবনম আলি।

মায়ের প্রাণভিক্ষা চেয়ে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে তার বার্তা, ‘প্রেসিডেন্ট আঙ্কেল, দয়া করে আমার মা শবনম’কে ক্ষমা করে দিন, ওর প্রাণভিক্ষা দিন।’

ছেলে সাত খুন মাফ চাইলেও ভাইঝির প্রতি কোনও সমবেদনাই নেই আলি পরিবারের। তাঁর পরিজনেরা দিন গুণছেন কবে নিজের কৃতকর্মের জন্য সাজা পাবেন শবনম। কবে হবে তাঁর ফাঁসি। শবনমের শিক্ষক পিতার সঙ্গে একই বাড়িতেই থাকতেন তাঁর ভাই। এখনও ভুলতে পারেননি ঘটনার পরেরদিনের বীভৎস দৃশ্য। কতটা নির্মম নিষ্ঠুর হলে নিজের রক্তের সম্পর্কের মানুষগুলোর গলা এভাবে কেউ কাটতে পারে, বলেন শবনমের কাকা সন্তর আলি। তাঁর স্ত্রী বলেন, ফাঁসিকাঠে যতদিন না ওই মেয়েকে লটকানো হচ্ছে ততদিন শান্তি পাবে না পরিবারের কেউ। বরং সৌদি আরবের মত নৃশংস পদ্ধতিতে ওর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হলে উপযুক্ত দণ্ড হত শবনমের।

সুত্রের খবর শবনম কে ফাঁসিতে ঝোলাবেন বিখ্যাত ফাঁসুড়ে পবন জল্লাদ ।মিরাটেরপবন কয়েকবার মথুরা জেলের ওই বিশেষ কক্ষ পরিদর্শনও করেছেন। তিনি কক্ষটিতে প্রয়োজনীয় কিছু বদল আনার পরামর্শও দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মথুরা জেলের সুপার শৈলেন্দ্র কুমার মৈত্রেয় জানিয়েছেন, ‘পরোয়ানা জারি হলেই ফাঁসি দেওয়া হবে। দিন ঠিক না হলেও, আমরা প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছি। পবন জল্লাদই ফাঁসি দেবেন। তিনি ফাঁসির কক্ষ পরিদর্শন করে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। বিহারের বক্সার জেলা থেকে ফাঁসির দড়িও আনা হয়েছে।’

 

স্বাধীন ভারতে প্রথম কোনও মহিলার ফাঁসি! লিখলেন সায়ন্তন মণ্ডল


এখনই শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।