‘দুয়ারে রেশন’ বেআইনি! কলকাতা হাইকোর্টে বড় ধাক্কা রাজ্য সরকারের

 

বিবিধ ডট ইন: ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগেই দুয়ারে রেশন প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিল তৃণমূল সরকার। ভোটের পর সেই প্রকল্প চালুও হয়েছে রাজ্যে। এবার সেই প্রকল্প নিয়েই কলকাতা হাইকোর্টে বড় ধাক্কা খেল রাজ্য সরকার। এই প্রকল্প জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইন, ২০১৩-র পরিপন্থী বলে দাবি করল হাইকোর্ট। রেশন ডিলারদের করা একটি মামলায় এমনটাই বলেছে আদালত।

তৃতীয়বার রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প চালু করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সেই প্রকল্পের আইনি বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। এর জেরে কলকাতা হাইকোর্টে এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে আইনি মামলা করেছিলেন রেশন ডিলাররা। এই মামলার রায়েই আজ, বুধবার হাইকোর্ট জানিয়ে দিল যে এই প্রকল্প বেআইনি।

গত বছর অগস্ট মাসে রেশন ডিলারদের একটা অংশ হাইকোর্টে মামলা করে। তাঁদের বক্তব্য ছিল যে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এভাবে রেশন পৌঁছে দেওয়া সম্ভব নয়। দিল্লিতেও এই কর্মসূচি শুরু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল, কিন্তু আদালত তাতে অনুমতি দেয়নি। ডিলাররা জানান যে কেন্দ্রীয় আইনের পরিপন্থী। কিন্তু সেই সময় বিচারপতি অমৃতা সিনহা ডিলারদের আবেদন খারিজ করে দিয়েছিলেন।

এর ফলে ফের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা করেন রেশন ডিলাররা। আর সেই মামলাতেই আজ বিচারপতি অনিরুদ্ধ বসু ও বিচারপতি চিত্তরঞ্জন সাউয়ের ডিভিশন বেঞ্চ রায় দিয়েছে যে দুয়ারে রেশন প্রকল্প বেআইনি। এই রায় যে রাজ্যের জন্য বেশ বড় ধাক্কা, তা বলাই বাহুল্য।

এ প্রসঙ্গে মামলাকারী শেখ আবদুল মাজি বলেন, ‘জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা আইনের পরিপন্থী হল দুয়ারে রেশন প্রকল্প। রাজ্য সরকার জোর করে এই প্রকল্প চালাচ্ছিল। কখনও ডিলারদের ভয় দেখিয়ে, জরিমানা করে দুয়ারে রেশন চালাচ্ছিল রাজ্য সরকার। এদিন প্রকল্পটাকেই বেআইনি ঘোষণা করেছে আদালত।’

একুশের ভোটের ইস্তেহারে দুয়ারে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য ছিল, দোকানে গিয়ে আর রেশন নিতে হবে না মানুষকে। রেশন পৌঁছে যাবে পাড়ায়, মহল্লায়। তার পরিকাঠামো নিয়েও সমস্যা দেখা দিয়েছিল। বহু জায়গায় এই প্রকল্প সে ভাবে শুরুও করা যায়নি। তবে যেসমস্ত জায়গায় তা শুরু হয়েছিল, সেখানেও বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: