ভোটার-তালিকায় ‘মৃত’ সেকেন্ড পোলিং অফিসার!

বিবিধ ডট ইন হরিণঘাটা ডেয়ারিতে কর্মরত টালিগঞ্জের চারু মার্কেট এলাকার বাসিন্দা বছর ৫৯-র শৈলেন্দ্র চন্দ্র ঘোষ। সরকারি কর্মচারী হবার দরুন প্রতি বারের মতন এবারেও ভোটের ডিউটি পড়েছে তাঁর।

তবু নির্বাচন কমিশন দ্বারা প্রকাশিত ভোটার তালিকায় তাঁকে মৃত হিসেবে ঘোষণা করেছে কমিশন। তাই নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করলেও নির্বাচন কমিশনের সংশোধনী সত্ত্বেও ভোট বয়কটের সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি।

সঙ্গে থাকুন। ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেজ:

আগামী ২৬ শে এপ্রিল কোলকাতা বন্দর এলাকার কোনো একটি বুথে সেকেন্ড পোলিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করতে হবে তাঁকে। নির্বাচন কমিশনের তরফে চিঠি দিয়ে এমনটাই জানানো হয়েছিল। সেই মত ইতিমধ্যে দু-দফা প্রশিক্ষণও সম্পন্ন হয়েছে শৈলেন্দ্র বাবুর৷

স্থানীয় ভোটার তালিকায় নিজের নামের আগে এক্সপায়ার্ড লেখা দেখে হতবাক শৈলেন্দ্র বাবু জানান

‘ভোটার তালিকায় আমার নামের আগে ইংরেজি ‘ই’ এবং নামের পাশে ডিলিটেড লেখা। যার অর্থ আমি মৃত তাই আমার ভোটাধিকার বাতিল হয়েছে৷’

নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে অভিযোগ জানাবার পর তথ্যগত ত্রুটির কথা স্বীকার করে নিয়ে তা শুধরে নেওয়া হলেও এবার ভোট দান থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়া শৈলেন্দ্র বাবু বলেন

‘নির্বাচন কমিশনের তরফে বলা হয়েছে অভিযোগ পত্রের প্রতিলিপি দেখিয়ে আমি ভোট দিতে পারব। কিন্তু প্রতিবাদ স্বরূপ এবারের ভোট আমি দেব না।’

লিখেছেন সায়ন্তন মণ্ডল

হ্যালো! আপনার মতামত আমাদের কাছে মূল্যবান

%d bloggers like this: