কয়লাকাণ্ডে বাড়িতে সিবিআই, কী প্রতিক্রিয়া অভিষেকের?

এখনই শেয়ার করুন

বিবিধ ডট ইন: পশ্চিমবঙ্গে ভোটের দামামা বেজে ওঠার পর থেকেই ডান-বাম সব দল একসঙ্গে মেতে উঠেছে ‘খেলা হবে’ স্লোগান নিয়ে। তবে কী খেলা, সে বিষয়ে এখনও ধোঁয়াশা কাটেনি। এরই মধ্যে রাজ্য রাজনীতিতে চাপানউতর। রবিবার দুপুর দু’টো নাগাদ সিবিআইয়ের একটি দল হানা দেয় তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে। তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নোটিস দেওয়া হয় বলেই সূত্রের খবর। বেআইনি কয়লা পাচার কাণ্ডে জেরা করতে চেয়েই এই নোটিশ, এমনটাই জানা যাচ্ছে সিবিআই সূত্রে। তবে বিকেলের দিকে তার প্রতিক্রিয়ায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সাফ জানিয়েছেন, এসব করে ভয় পাওয়ানো যাবে না।

মূলত আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত বিষয়েই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে সিবিআই সূত্রে খবর। টাকা কে পাঠিয়েছে? কোথা থেকে ট্রান্সফার হয়েছে? কেন হয়েছে? এই ব্যাপারে বিস্তারিত না জানালেও, সিবিআই সূত্রের দাবি, কয়লা পাচারের টাকা থেকে বিভিন্ন হাত ঘুরে জমা পড়েছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী-কে প্রশ্ন করতে চায় গোয়েন্দারা। তবে তাঁকে সিবিআই দফতরে তলব করা হচ্ছে না। বাড়িতেই মহিলা সিবিআই অফিসারদের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান গোয়েন্দারা। রেকর্ড করতে চান তাঁর বয়ান।

সূত্রের খবর, অনুপ মাজি ওরফে লালার কাছ থেকে টাকা এসে পৌঁছতো বিনয় মিশ্রর কাছে এবং তারপর সেই টাকা ট্রান্সফার হতো বিদেশের কিছু অ্যাকাউন্টে। তবে শুধু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী নন তাঁর শ্যালিকাকেও নোটিস দেওয়া হয়েছে সিবিআইয়ের তরফে। জানা যাচ্ছে তাঁদের নজরে রয়েছে লন্ডন এবং থাইল্যান্ডের দু’টি একাউন্ট।

এই ঘটনার পর টুইটারে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘আজ দুপুর ২টোয় সিবিআই আমার স্ত্রীর নামে একটি নোটিস দিয়েছে। আইনের অনুশাসনের উপর আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। ওরা যদি মনে করে যে এ ধরনের পরিকল্পনা করে আমাদের দাবিয়ে রাখা যাবে, তবে ভুল ভাবছে। আমাদের এভাবে নত করানো যাবে না।’

প্রসঙ্গত এ বছরই জানুয়ারি মাসের পঁচিশ তারিখ তমলুক থেকে শুভেন্দু অধিকারী প্রথম অভিযোগ করেন, ‘ম্যাডাম নারুলা-টা কে? লালার টাকা কার একাউন্টে ঢুকেছে? লিখে রাখুন ব্যাংকটার নাম হল কাশীকর্ন ব্যাঙ্ক অফ থাইল্যান্ড। সিয়াম প্যারাগন ব্রাঞ্চ। প্রতিমাসে ৩৬ লক্ষ টাকা ঢুকেছে। রসিদ আছে আমার কাছে।’

তার কয়েকদিন পরেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কাঁথির জনসভা থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তাঁর স্ত্রীর থাইল্যান্ডে কোনও অ্যাকাউন্টই নেই।

ঘটনাচক্রে সোমবার শহরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দায়ের করা মামলার জেরে আগামীকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কোর্টে হাজিরা দেওয়ার কথা এবং তার আগে আজ তৃণমূল এমপির বাড়িতে সিবিআই নোটিশ দেওয়ায় যে চাপানউতর তৈরি হয়েছে তা নিয়ে রবিবাসরীয় দুপুরে বাংলা এখন সরগরম।

লিখলেন ঈশান পাল।


এখনই শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।